মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, আমি আল্লাহ্‌র নবী মোহাম্মাদ (সঃ) এর সাথে ৩০০ বারেরও বেশি বার সাক্ষাৎ করেছি। আমি আপনাকে বলতে পারব না মোহাম্মাদ (সঃ) এর চেহেরা দেখতে কেমন। কারণ যখন আমি তার কাছাকাছি যাই, আমার মাথা শ্রদ্ধায় অবনত থাকে এবং আমাদের নামাজের মত আমার দৃষ্টি থাকে। আরেকটি কারণ হচ্ছে, তার মুখ থেকে সবসময় আলোর নির্গমন হয়। যার কারণে তার মুখের বৈশিষ্ট্যবুঝতে পারাটা কঠিন। মোহাম্মাদ (সঃ) এর উচ্চতা ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি (প্রায়)। তার আছে অত্যন্ত সুদর্শন দেহ। তিনি খুব সুন্দরভাবে ও সহজে পৃথিবীতে হাঁটেন। তার মাথা কাপড় দিয়ে ঢাকা এবং মোহাম্মাদ (সঃ) এর দেহ থেকে সাদা নূর বেরিয়ে আসে। আমার পুরো শরীর সাক্ষী যে, এই হচ্ছে আল্লাহ্‌র নবী মোহাম্মাদ (সঃ)। এবং যখন আমি তার সাথে হাত মিলিয়ে অভিবাদন করি তখন আমার হাত অনুভব করে যে, এই হচ্ছে রসূলুল্লাহ (সঃ) এর হাত। এবং যখন আমি তার সাথে আলিঙ্গন করি তখন আমার দেহ সাক্ষ্য দেয় যে, এই হচ্ছে রসূলুল্লাহ (সঃ) এর উষ্ণ দেহ। এবং আমি সত্যিই খুশি ও অধীর অনুভূতি পেয়ে থাকি। তিনি খুবই নম্রভাবে ও অমায়িকভাবে কথা বলেন। তিনি সবচেয়ে গভীরতম ভালবাসা দেখান এবং সবচেয়ে ব্যাখ্যাতীত ভালবাসেন। যেন তিনি তার দীর্ঘ হারিয়ে যাওয়া ছেলের সাথে দেখা করছেন। তিনি তার উম্মতের জন্য দোয়া করেন এবং তাদের জন্য কাঁদেন। পূর্বে কেউ তার মত করে কাঁদেননি। তিনি বলতে থাকেন, আমার উম্মত…। তিনি গভীরভাবে তার উম্মতের জন্য অনুতপ্ত হন। তিনি বিপথগামীদের জন্য দোয়া করতে থাকেন। আমি এমন বিষাদের জন্য শব্দ ব্যবহার করতে পারব না। আপনি যদি এই সম্পর্কে জানতেন, আপনি যদি চিন্তা করতেন, আপনি কান্না থামাতেন না। একটা উদাহরণ হচ্ছে, তিনি সমস্ত চারপাশ হাঁটেন আগে পিছে শুধু চিন্তিত। এবং তিনি এত বেশি আশা করেন শক্তি ও উদ্দীপনা, যখন তিনি আমাকে কিছু সুপারিশ করেন। একটা স্বপ্নের ঘটনা ছিল এটা আমি অন্য ভিডিওতে বলব। আমি তার চোখের দিকে তাকালাম ঐ সময় তা অশ্রুসিক্ত ছিল এবং আমি স্তম্ভিত ছিলাম। আমি অন্য কোন দিকে তাকাতে পারিনি। আল্লাহ্‌ তার চোখকে নূর দিয়ে পূর্ণ করে দিলেন।