মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, এই স্বপ্নটি ২০২০ সালের ২২শে মার্চ দেখেছিলাম। এই স্বপ্নে একটি কালো ও সাদা পর্দা/স্ক্রিন রয়েছে। সেখানে আমি দেখলাম করোনা ভাইরাসটি এটি আসল আকার বা ফর্মের মধ্যে চলছে। আমি অনুভব করলাম যেন আমি একটি মাইক্রোস্কোপিক লেন্সের নীচে এই সমস্ত দেখছি। কেউ আমাকে বলেছিলো, আমরা যদি এই ভাইরাসটিকে একটি নির্দিষ্ট উপায়ে কাটি তবে তা দুর্বল ও অকার্যকর হয়ে পড়বে। তারপরে তিনি আমার সামনে নির্দিষ্ট সময়ে ভাইরাসটি কেটেছিলেন। এখন, আমরা যদি এই দুর্বল বা অকার্যকর ভাইরাসটি মানুষের দেহে রাখি তবে এটি শরীরের কোনও ক্ষতি করতে পারবে না। অন্যদিকে, দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা এই ভাইরাসটি সম্পর্কিত তথ্য সংরক্ষণ বা নিবন্ধন করবে এবং দেহেরও বিকাশ ঘটাবে এটির (ভাইরাসটির) বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য। এখন, যদি আসল ভাইরাসটি মানুষের শরীরে প্রবেশ করে তবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তা সনাক্ত করতে পারে এবং এটির নেতিবাচক প্রভাব দূর করবে এবং দেহে এর কোনও ক্ষতিকারক প্রভাব পড়বে না। এর পরে আমি বলেছিলাম যে, এই ধারণাটি সাধারণ মানুষ বুঝতে পারে না। তবে যদি আমি এটি বিশেষজ্ঞের কাছে ব্যাখ্যা করি তবে তিনি সহজেই বুঝতে পারবেন।