মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, আমি এই স্বপ্নটি ২০১৫ সালে দেখেছি। আমি একটি জায়গায় পৌঁছে গিয়ে একটি বড় হল দেখতে পেলাম যেখানে দাজ্জাল উদ্ভিদ স্থাপন করে (যাদু তৈরি করে) তার শক্তি বাড়িয়ে চলেছে এবং সে নতুন শক্তি তৈরিতে ব্যস্ত ছিল, কিছু লোক এতে কাজ করছে। দাজ্জাল কোথাও সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টি করছিল এবং কিছু লোককে তার সাথে একত্রিত করার চেষ্টা করছিল, যারা তাকে অস্বীকার করছিল তাদের সে হত্যা করছিল। এবার দাজ্জালকে দেখতে পেলাম অন্যরকম চেহারায় সে ভয়ঙ্কর, লম্বা এবং অনেক শক্ত শরীরের ছিল। সে বলছিল: খুব শিগগিরই আমার শক্তি বৃদ্ধি পাবে, আমি কিছু নতুন শক্তি পাবো, তাই আমি পুরো বিশ্বে আমার ভয় তৈরি করব, গোটা জগতটি হয় হয় আমার সামনে মাথা নত করবে অথবা আমি তাদের মেরে ফেলব। আমি এই সব দেখে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লাম। দাজ্জাল হাজির হলে আমি কীভাবে বিশ্বকে শান্তিতে পূর্ণ করব এবং কীভাবে আবার পুরো বিশ্বে সত্য ইসলাম বিরাজ করবে। আমি প্রার্থনা করলাম: ‘হে আল্লাহ! দয়া করে দাজ্জালকে থামান তার পরবর্তী কাজ থেকে। অতঃপর আল্লাহ আমাকে তরবারির মতো অস্ত্র দেন। আমি সেই জায়গায় ফিরে গেলাম যেখানে দাজ্জালের শক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছিল, সেখানে আমি তরোয়ালটির সাহায্যে দাজ্জাল দ্বারা প্রতিষ্ঠিত সমস্ত গাছপালা (যাদু উৎপাদক) ধ্বংস করতে শুরু করি। আমি যখন সমস্ত গাছপালা (যাদু তৈরির) ধ্বংস করি তখন দাজ্জাল আমার কাছে এসে বলে: কাসিম! আপনি ভাল করেননি! আমি কখনো আপনাকে ছাড়বো না। সুতরাং আমি তাকে বলি যে: আপনি সন্ত্রাসীদের মধ্যে রয়েছেন, এখানেই আপনার শেষ হওয়া উচিত। তখন দাজ্জাল আমাকে জবাব দেয়: কী ভাবছ? তুমি কি আমাকে থামিয়ে দেবে? তারপরে আমি তাকে একই তরোয়াল দিয়ে আঘাত করেছি, সে মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে তবে মারা যায় না। আমি তাকে পৃথিবীর গভীরতায় কবর দিই এবং তার উপর গলে যাওয়া লোহা ঢালি। তারপরে আমি নিজেকে বলি: দাজ্জাল মারা যায় নি তবে এখান থেকে বের হয়ে আসতে তার অনেক বছর সময় লাগবে।