মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, ৮ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে আমি এই স্বপ্নটি দেখেছি। আমি একটি বড় ঘরে ছিলাম। সেনাবাহিনী প্রধান এবং অন্যান্য ব্যক্তিরা একটি বৃত্তাকার টেবিলে কথা বলছিলেন। আমি বাহিরের দরজার কাছে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এই মিটিংটি জরুরিভাবে একটি গুরুতর সমস্যা মোকাবেলার জন্য তৈরি করা হয়েছিল। এই সমস্যাটি ছিল এমন, সেখানকার মানুষ যারা দেশব্যাপী বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং অস্থিতিশীল করার পরিকল্পনা করেছিল। তারা সাধারণ পোশাকের পোশাক পরেছিল। সেনাবাহিনীর প্রধান তাদের পরিকল্পনা শুনে, পরে সে খুব বিরক্ত হয়ে গেল। তিনি বলেন যে কিছু না করতে, অথবা আমি আরোপ করবো সেনা শাসন। তারপর অন্যান্য লোকজন উত্তর দিয়ে বলল আপনি আমাদের থামাতে পারবেন না এবং আপনি পরেও কিছু পদক্ষেপ নিতে পারবেন না। তারপর সেনাপ্রধান নীরব হয়ে গেল। তারপর তিনি বলেন, আমি আপনাকে সতর্ক করলাম, তা করবেন না। কিন্তু তারা তাকে উপেক্ষা করেছে, এবং তাদের পরিকল্পনা করা অব্যাহত রেখেছে। রাগান্বিত হওয়ার পর, সেনাবাহিনী প্রধান বেরিয়ে আসেন দরজার দিকে, যেখানে আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম। যখন তিনি বাহিরের দরজার কাছাকাছি আসলেন, তিনি আমাকে লক্ষ্য করলেন। তিনি আমার কাছে এসেছিলেন, এবং বললেন, কাসীম আমাদের সাহায্য করো। ঐ লোকদের থামাও অন্যথায় এই দেশ পৃথক্ হবে এবং কাজ শেষ করে আমায় দয়াকরে জানাবে। আমি বললাম ঠিক আছে, আমি তাদেরকে থামানোর চেষ্টা করব। তিনি রুম থেকে চলে গেলেন এবং আমি বললাম, যদি সেনাবাহিনীর প্রধানরা তাদের থামাতে না পারে, কিভাবে আমি পারব ? অতঃপর আমি আল্লাহ্‌র উপর বিশ্বাস করেছি এবং তাঁর উপর ভরসা করেছি। আমি বৃত্তাকার টেবিলের উপর গিয়েছিলাম, এবং দেখলাম যে, তারা ইতিমধ্যে তাদের পরিকল্পনা শুরু করেছে। আমি কিছু সময় তারা কী করছেন তা দেখছিলাম। তারপর আমি তাদের সাথে কথা বলা শুরু করি, কিন্তু আমি মনে করি না ঠিক আমি কি বলব ? তবে শেষ পর্যন্ত, আমি তাদের থামাতে সক্ষম ছিলাম। তারপর আমি সেনাবাহিনী প্রধানের কাছে গিয়েছিলাম, এবং বললাম যে আমি তাদেরকে থামিয়েছিলাম। তারপর সেনাবাহিনীর প্রধান খুশি হয়েছিলেন এবং বললেন যে তুমি একটি দারুন কাজ করেছো, এখন আমাদের সাথে থাকো তাহলে আমরা আমাদের দেশকে পুনঃনির্মাণ করতে পারবো এবং শীঘ্রই আমরা শক্তিশালী হবো এবং শান্তি এবং রহমত প্রসারিত হবে। স্বপ্ন এখানেই শেষ হয়।