মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, ২০১৮ সালের ২৫ জুলাই, এই স্বপ্নে তিনি দেখেন যে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অনেক চ্যালেঞ্জ ও সমস্যার মুখোমুখি হন এবং যেভাবে তিনি তার লক্ষকে অনুসরণ করতে চান, তিনি তা করতে পারেন না এবং তার সাধনা ব্যর্থ হয়। তার ব্যর্থতার কারণে তার খুব মন খারাপ হয়ে যায়। আমি একটি রুমের মধ্যে বসে এইসব পরিস্থিতি দেখতেছি। তারপর ইমরান খানও সেই ঘরের দিকে হেঁটে চলে আসেন যেখানে আমি ইতিমধ্যে উপস্থিত আছি। যখন তিনি রুমে প্রবেশ করেন, তিনি ক্রোধে কিছু বলেন, যা আমি মনে করতে পারছি না। আমি তার সাথে কথা বলি এবং তাকে বলি যে, যদি আপনি আল্লাহ্‌র সাহায্য চান তবে আপনাকে শির্কের সকল রূপগুলো পরিত্যাগ করতে হবে। যেভাবে আপনি মাজারে সিজদা করেছিলেন, সেটি হল শিরকের একটি প্রধান রূপ এবং আপনার সেই কর্মের জন্য আপনার আল্লাহ্‌র কাছে ক্ষমা চাওয়া এবং তাওবা করা উচিত। আপনার অনুশোচনার সাথে আল্লাহ্‌র সামনে সিজদা করা উচিত। আপনাকে একটি দৃঢ় এবং আন্তরিক প্রতিশ্রুতি করতে হবে যে, আপনি আল্লাহ্‌ ব্যতীত অন্য কারো সামনে আর কখনোই মাথা নত করবেন না। আমি তাকেও স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলাম যে, আপনি নিজেই বলেছিলেন যে, “ইমরান খান আল্লাহ্‌ ব্যতীত অন্য কারো সামনে মাথা নত করে না।” তাহলে কেন আপনি তা করলেন? তখন ইমরান খান তার ভুল বুঝতে পেরে বললেন, হ্যাঁ, আমি এটা বলতাম। তারপর তিনি বলেন যে, আমি কেবল আল্লাহ্‌র কাছেই মাথা নত করতাম, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমি এমন লোকদের দ্বারা ঘিরে ছিলাম যে আমি ভুল পথে গিয়েছিলাম। তারপর আমি তাকে বললাম যে, যে কেউ মারা গেছে সে মারা গেছে এবং সে এই বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং সাহায্যের জন্য আমরা তাকে ডাকতে পারি না। ইমরান খান আমার কথা খুব যত্ন ও মনোযোগ দিয়ে শোনেন। আমি তাকে বলি যে, যদি কেউ কোন কবরে যায় এবং মৃতদের কাছ থেকে কোন সাহায্য চায় তবে এটিও শির্কের একটি রূপ। যদি কোন ব্যক্তি কাউকে শুভেচ্ছা জানানো বা সম্মান দেখানোর জন্য কারো সামনে মাথা নত করে যেমন জাপানের লোকজন করে থাকে তাহলে ঐটাও শিরকের একটি রূপ। এইরকম অন্যান্য আরো অনেক প্রকারের শির্ক আছে। যদি আপনি আল্লাহ্‌র সাহায্য চান এবং যদি আপনি সফল হতে চান, তাহলে আপনাকে সব ধরনের শির্ক থেকে নিজেকে রক্ষা করতে হবে, অন্যথায় আপনি কখনোই সফল হতে পারবেন না। ইমরান খান খুব মনোযোগ সহকারে আমার কথা শুনেছেন। যেমন কেউ যদি কোন কিছুর মধ্যে একটি বড় আশা দেখে। এবং ইমরান খান এই আশাটি দেখেছিলেন শির্ক এবং শিরকের রূপগুলিকে এড়িয়ে চলার মধ্যে। কারণ এটার মত করে আগে কেউ তাকে শির্ক এবং শিরকের রূপগুলো সম্পর্কে ব্যাখ্যা করেনি অথবা তাদের সম্পর্কে তাকে সতর্ক করেনি।