মোহাম্মাদ কাসীমের স্বপ্নগুলো থেকে আল্লাহ্‌ আমাদেরকে বিশ্ব শান্তির সুসংবাদ দিচ্ছেন। মোহাম্মাদ কাসীমের প্রতি আল্লাহ্‌র প্রথম হুকুম হল, বিশ্বে এই খুশীর সংবাদ প্রচার করা। এই হল যে, উম্মতরা সচেতনভাবে এবং দ্রুত কাজ করবে। কেন আপনি দেখেন না যে, সমগ্র বিশ্ব মুসলমানদেরকে তাদের শত্রু হিসেবে নিয়ে যাবে এবং আমাদেরকে একের পর এক হত্যা করবে। ও মোহাম্মাদ (সঃ) এর উম্মত, আসুন এবার জেগে উঠি এবং একতা বদ্ধ হয়ে দাড়াই এবং আল্লাহ্‌ প্রদত্ত এই প্রতিশ্রুতিগুলো ছড়িয়ে দেই। মোহাম্মাদ কাসীম স্বীকার করেন যে, এটি তার কঠোর পরিশ্রম হবে। কিন্তু তিনি স্বপ্নে দেখেন যে, যখন আমরা একটি দলের আকারে কাজ করব, তখন পুরো পৃথিবী আমাদের কথা শুনবে। এই হচ্ছে মোহাম্মাদ কাসীমের স্বপ্ন, তিনি বলেন, আমি কোথাও হাঁটছিলাম এবং আমি জানি যে, আমার গন্তব্য হল শান্তির যুগ। এবং একজন ব্যক্তি আমার সাথে মিলিত হন এবং আমরা একই গন্তব্যের সামনে ছিলাম। যদিও তিনি ভূল পথে চলছেন, আমি কিছুই বলিনি বা তাকে বাধ্য করিনি। কিন্তু আমি তাকে ইঙ্গিত করেছিলাম যে, আপনি ভূল পথে যাচ্ছেন। যাইহোক, অন্য ব্যক্তিটি লক্ষ্য করল এবং সঠিক দিকে আসলো এবং এক ঝলক রসিকতার মত ছিল। তিনি কয়েক জন লোককে জড়ো করলেন। তারা এক পর্যায়ে আমার জন্য অপেক্ষা করছিল এবং আমি তাদের সাথে সাক্ষাৎ করলাম। তারা আমার নাম জানত এবং আমি যেখানে গিয়েছিলাম সেটি আমাকে বিস্মিত করেছে এই ভেবে যে, কোথায় আমি তাদের সাথে আগে দেখা করেছিলাম। আল্লাহ্‌ আমাকে বলেছেন, এটার কারণ হল তুমি তোমার সকল মৌলিক স্বপ্নগুলো প্রচার করেছ এবং তারা তোমাকে চিনেছে। তারা অসাধারণ মানুষ ছিল, খুব চমৎকার এবং দয়াশীল। তারা আমাকে জিজ্ঞেস করেছে, আপনি কোথায় যাচ্ছেন ? মানে আমাদের কাজ কী। যখন তারা জানল আমি শান্তিপূর্ণ ভূখণ্ডের পথে চলছিলাম, তারা আমাকে অনুসরণ করা শুরু করলো এবং এমনকি আমার চেয়ে দ্রুত হাঁটছিল। তারপর আল্লাহ্‌ আমাদেরকে গাড়ী দিলেন এবং আমরা দ্রুত গতিতে চলে গেলাম। এক পর্যায়ে লোকটি আরো অনেক লোক জড়ো করল এবং তারপর সমগ্র বিশ্ব আমাদের প্রচেষ্টা দেখল। আমি আশা করি আপনিও সেই ব্যক্তিটি হতে পারেন।